জানুয়ারির ১০,১১,১২তে মুসলিম বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ সমাবেশ বিশ্ব ইজতেমা

0
531

সামনের জানুয়ারিতে রাজধানীর অদূরে টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে অনুষ্ঠিত হবে মুসলিম বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ সমাবেশ বিশ্ব ইজতেমা। ইতোমধ্যেই শুরু হয়েছে ইজতেমার প্রস্তুতি, বাঁধা হয়েছে শামিয়ানা ও ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের জন্যে তৈরী হচ্ছে সাময়িক থাকার জায়গা। ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে মাঠে করছেন কর্মীরা। অনেক মুসল্লি আগে আগে চলে এসে মাঠ তৈরীতে দিচ্ছেন স্বেচ্ছাশ্রম। জানা গেছে এবারের ইজতেমার জায়গা বাড়ানো হচ্ছে।

প্রথম পর্বে ইজতেমায় সর্বোচ্চ সংখ্যক উপস্থিতির সম্ভাবনায় ইজতেমার জায়গা বাড়ানোর চিন্তা করছে মুরব্বিরা। সারাদেশ থেকে আলমি শুরার সাথীদের ব্যাপক উপস্থিতির বিষয়টি বিবেচনা করেই এ সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন ইজতেমার মুরব্বিরা। ইজতেমা মাঠের প্রস্তুতি কাজের জিম্মাদার মোস্তফা ইসলাম জানান, ‘ইজতেমার সাথীদের অবস্থানে পর্যাপ্ত স্থানের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে এ বছর বেড়িবাঁধের পশ্চিম পাশে, বাটা কোম্পানির মাঠ ও হুন্ডা ভবনের খালি অংশও ইজতেমার জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে। যাতে আগত মুসল্লিদের মাঠে অবস্থানে বিঘ্ন না ঘটে।
সামনের জানুয়ারিতে রাজধানীর অদূরে টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে অনুষ্ঠিত হবে মুসলিম বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ সমাবেশ বিশ্ব ইজতেমা। ইতোমধ্যেই শুরু হয়েছে ইজতেমার প্রস্তুতি, বাঁধা হয়েছে শামিয়ানা ও ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের জন্যে তৈরী হচ্ছে সাময়িক থাকার জায়গা। ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে মাঠে করছেন কর্মীরা। অনেক মুসল্লি আগে আগে চলে এসে মাঠ তৈরীতে দিচ্ছেন স্বেচ্ছাশ্রম। জানা গেছে এবারের ইজতেমার জায়গা বাড়ানো হচ্ছে।

প্রথম পর্বে ইজতেমায় সর্বোচ্চ সংখ্যক উপস্থিতির সম্ভাবনায় ইজতেমার জায়গা বাড়ানোর চিন্তা করছে মুরব্বিরা। সারাদেশ থেকে আলমি শুরার সাথীদের ব্যাপক উপস্থিতির বিষয়টি বিবেচনা করেই এ সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন ইজতেমার মুরব্বিরা। ইজতেমা মাঠের প্রস্তুতি কাজের জিম্মাদার মোস্তফা ইসলাম জানান, ‘ইজতেমার সাথীদের অবস্থানে পর্যাপ্ত স্থানের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে এ বছর বেড়িবাঁধের পশ্চিম পাশে, বাটা কোম্পানির মাঠ ও হুন্ডা ভবনের খালি অংশও ইজতেমার জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে। যাতে আগত মুসল্লিদের মাঠে অবস্থানে বিঘ্ন না ঘটে।। ইতোমধ্যেই শুরু হয়েছে ইজতেমার প্রস্তুতি, বাঁধা হয়েছে শামিয়ানা ও ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের জন্যে তৈরী হচ্ছে সাময়িক থাকার জায়গা। ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে মাঠে করছেন কর্মীরা। অনেক মুসল্লি আগে আগে চলে এসে মাঠ তৈরীতে দিচ্ছেন স্বেচ্ছাশ্রম। জানা গেছে এবারের ইজতেমার জায়গা বাড়ানো হচ্ছে।

প্রথম পর্বে ইজতেমায় সর্বোচ্চ সংখ্যক উপস্থিতির সম্ভাবনায় ইজতেমার জায়গা বাড়ানোর চিন্তা করছে মুরব্বিরা। সারাদেশ থেকে আলমি শুরার সাথীদের ব্যাপক উপস্থিতির বিষয়টি বিবেচনা করেই এ সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন ইজতেমার মুরব্বিরা। ইজতেমা মাঠের প্রস্তুতি কাজের জিম্মাদার মোস্তফা ইসলাম জানান, ‘ইজতেমার সাথীদের অবস্থানে পর্যাপ্ত স্থানের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে এ বছর বেড়িবাঁধের পশ্চিম পাশে, বাটা কোম্পানির মাঠ ও হুন্ডা ভবনের খালি অংশও ইজতেমার জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে। যাতে আগত মুসল্লিদের মাঠে অবস্থানে বিঘ্ন না ঘটে।

মন্তব্য দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here